Turkiye Burslari Scholarship | তুরস্ক বুর্সালারি স্কলারশিপ ২০২৪ । বিস্তারিত বাংলায়

আসসালামুয়ালাইকুম, শুরু হয়েছে তুরস্ক বুর্সালারি স্কলারশিপ। তাই এই স্কলারশিপ সম্পর্কে বিস্তারিত নিচে দেয়া হলো। সবাই মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

আবেদন এর যোগ্যতাঃ

  1. তুরস্কের বাইরের দেশের নাগরিক হওয়া।
  2. অনার্সের জন্য ৭০%, মাস্টার্সের জন্য ৭৫%, হেলথ সাইন্স (মেডিসিন, ডেন্টাল ও ফার্মেসি) এ এপ্লাই এর  জন্য ৯০% মার্ক থাকতে হবে।
  3. মেডিকেল ডিপার্টমেন্টগুলোতে এপ্লিকেশন করতে SSC এবং HSC দুটোতেই ৯০% মার্কস থাকা আবশ্যক৷ অন্যথায় স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই৷
  4. অনার্সের জন্য ২১ বছর মাস্টার্স এর জন্য ৩০ বছর আর পিএইচডি এর জন্য ৩৫ বছর ও রিসার্চ এ এপ্লাই করতে ৫০ বছর এর নিচে বয়সসীমা হতে হবে। এর বেশি হলে কেউ এপ্লিকেশন করতে পারবেন না।

এই স্কলারশিপের সুযোগ সুবিধাঃ

  • প্রথমবার যাওয়া এবং শেষবার আসার টিকেট।
  • টিউশন ফি,স্বাস্থ্য বীমা,আবাসিক থাকা -খাওয়া ফ্রী।
  • ১ বছর ভাষা কোর্স সম্পূর্ণ ফ্রি।
  • প্রতিমাসে অনার্স লেভেলের জন্য ৩৫০০ লিরা,মাস্টার্স লেভেলের জন্য ৫০০০ লিরা ও পিএইচডি লেভেলের জন্য ৬৫০০লিরা স্টাইপেন্ড দেওয়া হবে।
  • মাস্টার্স এবং পিএইচডি স্টুডেন্টসরা ডর্মেটরিতে না থেকে আলাদা বাসায় থাকতে চাইলে ৭৫০ লিরা বাসা ভাড়া বাবদ অতিরিক্ত দেয়া হবে। তবে অনার্সের স্টুডেন্টসদের জন্য দেয়া হয়না।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট শো করতে হবেনা।

আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসঃ

  1. ছবি। (সাদা ব্যাকগ্রাউন্ডে টুপি ও চশমা ছাড়া)
  2. পাসপোর্ট/এনআইডি/ড্রাইভিং লাইসেন্স/জন্ম সনদ (ইংরেজি ভার্সন)।
  3. SSC/Dakhil ও HSC/Alim/ Honours/Masters এর সার্টিফিকেট ও মার্কশীট। (আবেদন ভেদে প্রযোজ্য)
  4. সিভি (যদি থাকে)
  5. লেটার অফ ইনটেন্ট/স্টেটমেন্ট অফ পারপাস – নিজেই লিখতে হবে কিভাবে লিখবেন তা জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন।

অতিরিক্ত ডকুমেন্টসঃ

  1. একাডেমিক প্রফিসিয়েন্সি পরীক্ষার সনদ (GRE, SAT) ইত্যাদি।
  2. ভাষা দক্ষতার সনদ (IELTS, TOEFL/IBT, DELF, Turkish Proficiency) ইত্যাদি।
  3. পূর্বে বা বর্তমানে করা যেকোন জবের অভিজ্ঞতার সনদ।
  4. রেফারেন্স লেটার (২টি) – এটি মূলত আপনার যে প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করেছেন সেখানকার শিক্ষক দিবেন। স্যাম্পল দেখতে ক্লিক করুন এই বাটনে See Reference
  5. বিভিন্ন কোর্স ও আপনার অর্জনকৃত সার্টিফিকেট।

বয়সসীমা ২০২৪ আবেদনকারীদের জন্যঃ

  • ব্যাচেলর এর আবেদনের জন্য ০১.০১.২০০৩ বা এর পরবর্তী।
  • মাস্টার্স এর জন্য ০১.০১.১৯৯৪ বা এর পরবর্তী।
  • পিএইচডি এর জন্য ০১.০১.১৯৮৯ বা এর পরবর্তী।

Freeuently Asked Questions;

প্রশ্নঃ এক্সট্রা কারিকুলাম সার্টিফিকেট কি?

উত্তরঃ এখানে Award, Project, Certificate and voluntary activities ইত্যাদিকে গণ্য করা হয়ে থাকে। মানে হচ্ছে একাডেমিক ক্যারিয়ারের বাহিরে যদি কোন সার্টিফিকেট পেয়ে থাকেন সেগুলো। যেমনঃ কোন অলিম্পিয়াড, কোন কোর্স, কোন ক্যাম্প, কোন কনফারেন্স বা সেমিনার কিংবা কোথাও ডিবেট,বক্তব্য অথবা কোন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম, দ্বিতীয় অথবা তৃতীয় হয়ে যে সার্টিফিকেটটা অর্জন করেছেন সেটাই এক্সট্রা কারিকুলাম সার্টিফিকেট হিসেবে গন্য হবে। পাশাপাশি যদি ভলেন্টিয়ারিং এর সার্টিফিকেট থাকে সেটাও এক্সট্রা কারিকুলাম হিসেবে গন্য হবে। এছাড়াও অনলাইন সার্টিফিকেট গ্রহণযোগ্য। যেহেতু এই বছর সবকিছুই অনলাইন বেইজড ছিলো তাই অনলাইন সার্টিফিকেট চাইলে শো করতে পারবেন।

প্রশ্নঃ রিকমেন্ডেশন লেটার কি এবং কার কাছ থেকে নিব?

উত্তরঃ আপনার কলেজ প্রিন্সিপাল বা ডিপার্টমেন্ট এর হেড স্যারের থেকে অথবা কোন অর্গানাইজেশনে কাজ করলে তার প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে রিকমেন্ডেশন লেটার নিতে পারবেন। সাধারণত কলেজের প্রিন্সিপাল স্যারের কাছে কোন লেটার তৈরি থাকেনা। সে ক্ষেত্রে আপনি নিজে একটা লেটার লিখে কলেজের প্যাডে প্রিন্ট আউট করে স্যারের কাছ থেকে একটা সাইন নিয়ে নিবেন। চাইলে গুগোল করে দেখে নিতে পারেন কিভাবে রিকমেন্ডেশন লেটার লিখতে হয়। আর ভার্সিটির প্রফেসরদের কাছে রেডিমেট লেটার তৈরি করা থাকে। উনাদের কাছে গেলেই লেটার পাওয়া যায়।

প্রশ্নঃ পার্ট টাইম জব করা যাবে?

উত্তরঃ তুরস্কে পার্ট-টাইম জব পাওয়া খুবই মুশকিল। এছাড়া যদি পড়ালেখা করার সত্যিই ইচ্ছে থাকে তাহলে পার্ট-টাইম জবের কথা চিন্তা না করাই ভালো৷ একেবারে পাওয়া যায়না সেটা বলবোনা কিন্তু এটা বলবো যে পার্ট-টাইম জব করে আর যা করেন পড়ালেখা করতে পারবেন না। যেহেতু বিজি শিডিউল থাকে সকালে থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত, সেখানে পার্ট-টাইম জব করার সময়ই পাবেন না। তাছাড়া যে পরিমাণ বৃত্তি সরকার আপনাকে দিবে সেটা দিয়ে খুব ভালোভাবেই আপনি মাস চালাতে পারবেন সেজন্য আলাদা করে টাকার চিন্তা করতে হবেনা।

প্রশ্নঃ কতগুলো ইউনিভার্সিটি ও সাবজেক্ট চয়েস করা যাবে?

উত্তরঃ একজন আবেদনকারী সর্বনিম্ন ১ টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং সর্বোচ্চ ১২ টি বিশ্ববিদ্যালয় চয়েজ দিতে পারবেন। সাবজেক্ট চয়েজের ক্ষেত্রেও সর্বনিম্ন ১ টি একটি এবং সর্বোচ্চ ১২ টি সাব্জেক্ট চয়েজ দিতে পারবেন। তবে সুযোগ থাকলেও সর্বোচ্চ ৩-৪ টি সাবজেক্ট চয়েজ দেয়ার পরামর্শ থাকবে।

প্রশ্নঃ পুরাতন একাউন্ট দিয়ে আবেদন করা যাবে কিনা?

উত্তরঃ হ্যাঁ আপনি চাইলে পুরাতন একাউন্ট দিয়ে আবেদন করতে পারবেন। নতুন একাউন্ট খুলতে হবে এমন বাধ্যবাধকতা নেই৷

ভিসার জন্য খরচ কেমন হবে?

উত্তরঃ ভিসার জন্য কোন আলাদা খরচ নেই। স্কলারশীপ পেলে ভিসা ফি নেই। শুধুমাত্র মেডিকেল ফীটাই লাগবে আর কোন খরচ নেই।

প্রশ্নঃ গ্রাজুয়েশনের পরে কি সাথে সাথে দেশে পাঠিয়ে দেয়?

উত্তরঃ হ্যাঁ গ্রাজুয়েশনের পরে আপনার রেসিডেন্স কার্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে, তবে যদি আপনি অন্য কোথাও এডমিশন নিয়ে রেসিডেন্স এর মেয়াদ বাড়াতে পারেন তবে থাকতে পারবেন। আর গ্রাজুয়েশনের পরে সাধারনত ১ বছর সময় দেয় থাকার জন্য।

আবেদনের ডেডলাইনঃ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বিঃদ্রঃ এখানে সমস্ত তথ্যাবলি বিভিন্ন রিসোর্স থেকে কালেক্ট করা। তাই যদি কোন ইউনিভার্সিটির সিনিয়র পার্সন কোন ভুল পেয়ে থাকেন। কাইন্ডলি রিকুয়েস্ট থাকবে পার্সোনালি যোগাযোগ করে  কাইন্ডলি ভুলটি সঠিক করতে সাহায্য করবেন।

নির্ভুল আবেদন ও অনুবাদ এর সেবা পেতে যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে,

📌 অনুবাদ, আবেদন ও যেকোন প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন 📌
Facebook: https://www.facebook.com/scholarshipcarecenter/
WhatsApp Number: +8801779-748813 (Text Only)
Email: [email protected]

📌 আমাদের কমিউনিটি গ্রুপসমূহ 📌
YouTube Channel: https://www.youtube.com/channel/UChwJGBj5Db9fatEaFnnsM0g
Telegram Channel: https://t.me/scholarshipcarecentercommunity
Facebook Group: https://www.facebook.com/groups/scholarshipcarecenter/
Our Website: https://scholarshipcarecenter.com/
WhatsApp Group https://chat.whatsapp.com/Cxi4R8KwGIAB28I2jhUW0h

2 Comments

  1. Tanzila Ahmedsays:

    জাযাকাল্লাহ 🌻
    খুবই সুন্দর করে,গুছিয়ে সবকিছু বুঝানো হয়েছে। একবার পড়লে আর কোনো confusion থাকার উপায় নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এভাবে রেকমেন্ডেশন লেটার লিখতে পারেন। চাইলে নিজে লিখে আপনার মাদ্রাসা/কলেজ এর অফিশিয়াল প্যাড এ প্রিন্ট করে সিল ও সাইন করে নিতে পারেন।
অবশ্যই অফিশিয়াল প্যাডে নিতে হবে এবং সে শিক্ষকের যাবতীয় তথ্য (নাম, ঠিকানা, পদবী, ইমেইল, ফোন নম্বর ইত্যাদি) উল্লেখ করে দিতে হবে।

lor sample